স্তন ক্যান্সার হতে পারে ব্রা পড়ার ফলে

      Comments Off on স্তন ক্যান্সার হতে পারে ব্রা পড়ার ফলে
স্তন ক্যান্সার হতে পারে ব্রা পড়ার ফলে
5 (100%) 1 vote

স্তন ক্যান্সার পশ্চিমা বিশ্বসহ বেশিরভাগ অঞ্চলের নারীদের মধ্যে রীতিমতো আতঙ্কের নাম। তবে আশার কথা হলো সঠিক সময়ে এর নির্নয়ে আমরা সহজেই এর চিকিৎসা করতে পারি। স্তন ক্যানসার সাধারনত স্তনের নালীর ভেতর থেকে শুরু হয়ে স্তনের মেদবহুল অংশে ছড়িয়ে যায়৷ ক্যানসারে আক্রান্ত মহিলাদের মধ্যে প্রায় ১.৭ ভাগই স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত। ক্যানসার হল কোষের অনিয়ন্ত্রিত অবিরাম বিভাজন৷ কোষের এই অবিরাম বিভাজন স্তনের ভিতর ঘটলে স্তন ক্যানসার দেখা দেয়৷

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

স্তন ক্যান্সার

সাধারনত যে সব মহিলারা সন্তানকে দুধ খাওয়াননা বা ত্রিশ বছরের পর প্রথম সন্তান জন্ম দিয়েছেন কিংবা নিঃসন্তান অথবা যাদের পরিবারে স্তন ক্যানসারের পারিবারিক ইতিহাস রয়েছে তাদের স্তন ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি পরিমাণে রয়েছে৷

এছাড়াও যে মহিলারা অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত খাবার খান এই সম্ভাবনা তাদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য৷ তবে সম্প্রতি আমেরিকার গবেষকরা প্রায় ৪,৫০০ জন মহিলার উপর পরীক্ষা চালিয়ে দেখেন বক্ষবন্ধনী ব্যবহার মহিলাদের স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার এক অন্যতম কারণ৷

গবেষকারা জনিয়েছেন, প্রতিদিন ১২ ঘন্টা বা তার বেশি সময় ব্রা পড়ে থাকলে মহিলাদের স্তন ক্যানসারের আশঙ্কা ১১ শতাংশ বেড়ে যায়৷ ব্রা পরার ফলে স্তনের লসিকানালী সঙ্কুচিত বা বন্ধ হয়ে যায় ফলে তার ভিতর দিয়ে শরীরের বিষাক্ত পদার্থগুলি দূর হতে পারে না৷ স্তনের কোষে এগুলি জমা হয়ে কোষে অনিয়ন্ত্রিত বিভাজন ঘটায় এবং ক্যানসার সৃষ্টি করে৷ পাশ্চাত্য দেশগুলোতে প্রতিবছর স্তন ক্যানসারের কারণে প্রায় কয়েক হাজার মহিলা মারা যান৷

স্তন ক্যান্সার হওয়ার ১০টি লক্ষণ

মহিলাদের মধ্যে ক্রমশই এই রোগের আক্রমণ বাড়ছে। প্রতি বছরই এই রোগে প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকে। তবে প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পড়লে স্তন ক্যান্সার থেকে সেরে ওঠা সম্ভব। নীচে রইল এই রোগের ১০টি লক্ষণ—

১) কমবেশি সব মহিলাদের স্তনেই লাম্প থাকে। এর মধ্যে কয়েকটি ক্যানসারাস ও কয়েকটি নন-ক্যানসারাস। এই ব্রেস্ট লাম্পগুলি অনেক সময় আন্ডারআর্ম বা কলার বোনের তলাতেও দেখা যায়। এছাড়া স্তনবৃন্তের আশপাশেও এই ধরনের লাম্প থাকে যেগুলি টিপলে শক্ত লাগে এবং অবস্থান পরিবর্তন করে না। এমন কিছু দেখলে অবিলম্বে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

উত্তেজনা বৃদ্ধি করার সফল কয়েকটি টিপস

২) কোনও রকম র‌্যাশ নেই স্তনে, তবু ইচিং বা চুলকানির মতো অনুভূতি হচ্ছে, এমন কিছু কিন্তু ক্যানসারের লক্ষণ। অনেক সময় এর সঙ্গে নিপ্‌ল থেকে হালকা হালকা রস‌ নিঃসৃত হয়, স্তনের ত্বকেও কিছুটা পরিবর্তন আসে। তাই চুলকানির মতো কিছু হলে নিজে থেকে কোনও ক্রিম বা লোশন লাগাবেন না। আগে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলবেন।

৩) স্তনে টিউমার থাকলে তা আশপাশের ব্রেস্ট টিস্যুগুলির উপর চাপ সৃষ্টি করে এবং তার ফলে স্তনে একটা ফোলা ফোলা ভাব দেখা যায়। এরই সঙ্গে স্তনে লাল ভাবও থাকে। স্তনে হাত দিলে বা চাপ দিলে ব্যথাও লাগে।

৪) কাঁধ এবং ঘাড়ের ব্যথাও ব্রেস্ট ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে কারণ এই ক্যানসার স্তন থেকে খুব সহজেই ছড়িয়ে পড়ে শরীরের এই অংশগুলিতে। এই সমস্ত জায়গায় ব্যথা হলে সাধারণের পক্ষে জানা সম্ভব নয় তা মাস্‌ল পেইন নাকি ক্যানসারের কারণে ঘটছে। তাই পরীক্ষা করে নেওয়াই ভাল।

৫) স্তনের আকার এবং সাইজ পরিবর্তনও এই ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে। সচরাচর এই বিষয়টি পার্টনারের চোখেই বেশি পড়ে। তেমন কিছু শুনলে বিষয়টি উড়িয়ে দেবেন না। নিজেই আয়নার সামনে স্তনটি পরীক্ষা করুন এবং ক্যানসারের পরীক্ষা করিয়ে নিন।

৬) স্তনে লাম্প সব সময় বড় আকারের হয় না। ছোট ছোট ফুসকুড়ির মতো লাম্পও দেখা যায় স্তনবৃন্তের আশপাশে। অন্তর্বাস পরে থাকার সময় যদি ঘর্ষণ অনুভব করেন, বিছানায় শোওয়ার সময় যদি ব্যথা লাগে তবে চিকিৎসকের কাছে যেতে দেরি করবেন না।

৭) ব্রেস্টফিডিং করছেন না অথচ স্তনবৃন্ত থেকে অল্প অল্প দুধের মতো জলীয় পদার্থ নিঃসরণ হচ্ছে এমনটা দেখলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের কাছে যাবেন। এটি স্তন ক্যান্সার হওয়ার অন্যতম বড় লক্ষণ। অনেক সময় স্তনবৃন্ত থেকে রক্ত পড়তেও দেখা যায়।

৮) স্তনবৃন্ত হল স্তনের অসম্ভব সংবেদনশীল অংশ। যদি দেখেন যে স্তনবৃন্ত স্পর্শ করলেও তেমন একটা অনুভূতি হচ্ছে না বা একেবারেই অনুভূতিহীন হয়ে গিয়েছে তবে তা স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা খুবই বেশি। স্তনবৃন্তের ত্বকের তলায় ছোট ছোট টিউমার তৈরি হলেই এমনটা হয়।

৯) স্তনবৃন্ত চ্যাপ্টা হয়ে যাওয়া, বেঁকে যাওয়া বা স্তনবৃন্তের শেপ অসমান হয়ে যাওয়া স্তন ক্যান্সার হওয়ার লক্ষণ, বিশেষ করে যদি ব্রেস্টফিডিং না চলাকালীন অবস্থাতেও এই বিষয়গুলি চোখে পড়ে। সঙ্গীকে বলুন ভাল করে পর্যবেক্ষণ করতে। সামান্য সন্দেহ হলেই চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

১০) স্তনের উপরের ত্বক খসখসে হয়ে যাওয়া, অনেকটা কমলালেবুর খোসার মতো, ক্যানসারের প্রাথমিক স্টেজের লক্ষণ। দিনের মধ্যে একটা সময় তাই ভালভাবে স্তনটি পর্যবেক্ষণ করা উচিত। যে কোনও লক্ষণ চোখে পড়লেই দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং পরীক্ষা করান।

132 total views, 1 views today

পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন