খারাপ মেয়ে চিনবেন যেভাবে

      Comments Off on খারাপ মেয়ে চিনবেন যেভাবে
খারাপ মেয়ে চিনবেন যেভাবে
5 (100%) 2 votes

খারাপ মেয়ে চেনাটা জরুরী। খারাপ মেয়ে চিনতে না পারলে আপনি বিপদে পড়তে পারেন যেকোন সময়। পৃথিবীতে অনেক মানুষ বসবাস করে। এরা একেকজন একেক রকম হয়ে থাকেন। একজনের সাথে আরেকজনকে মেলানো বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। এদের মাঝেই এমন কতগুলো মেয়ে আছে যারা ভীষণ লোভী হয়ে থাকেন। এই ধরণের খারাপ মেয়ে লোভের জন্য যেকোনো কিছু করে ফেলতে পারেন। ভাবছেন এতে আপনার সমস্যা কী? সমস্যা কিন্তু আছে, এই খারাপ মেয়ে মানুষদের কেউ যদি আপনার কাছের মানুষ হয়ে থাকেন, কিংবা হয়ে থাকেন ভালোবাসার মানুষটি, তাহলে কিন্তু মহা বিপদ। সে সর্বদা নিজের স্বার্থে আপনাকে ব্যবহার করবে, দিন শেষে নিজেকে আপনার মনে হবে পাপোশের মতন। আর তাই এই খারাপ মেয়ে মানুষগুলোকে চিনে রাখাটা ভীষণ জরুরী। কীভাবে চিনবেন? জেনে নিন চেনার কয়েকটি সহজ উপায়।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

খারাপ মেয়ে

লজ্জাই নারীর ভূষণ – এই ধরনের নারীরা আপাত ভদ্র হলেও তাদের মধ্যে নির্লজ্জ হাবভাব প্রকাশ পায়। পুরুষের চোখের দিকে চেয়ে থেকে এমনভাবে, যেন তার ভিতরটা পড়ে ফেলছে। নারীর ওই দৃষ্টি পুরুষের সর্বনাশের কারণ।

অশোভন আচারণ করে – চুল, ঠোঁট, ওড়না এবং মাথার চুল নিয়ে অশোভন ভাবে নাড়াচাড়া করতে শুরু করে কথা বলার সময়। এই ধরণের খারাপ মেয়ে পুরুষকে বাধ্য করে তার রূপের দিকে নজর দিতে। ইচ্ছে করে ইঙ্গিতবাহী পোশাক পরে আসে তার সামনে। যাতে সহজেই আকৃষ্ট করতে পারে।

পুরুষের সঙ্গে বন্ধুত্ব করে সহজেই – প্রথমে বন্ধুত্ব করে তারপর তার বাড়ির ব্যাপারে খোঁজ নিতে থাকে। যেহেতু এই নারীকে পুরুষ সহজেই বিশ্বাস করে নেয়, নিজের সম্পর্কে সবই তাকে বলে ফেলে। এমন নারী কিন্তু পুরুষকে ফাঁদে ফেলতে ওস্তাদ। নানাভাবে বিশ্বাস অর্জন করে, ব্ল্যাকমেইল করতেও পিছপা হয় না এরা। নানা ছুতোয় কথা বলার সুযোগ খোঁজে এই ধরণের খারাপ মেয়ে। এড়িয়ে গেলে বাড়ি চলে আসে। যেহেতু ততদিনে বাড়ির লোকের সঙ্গেও সদ্ভাব করে নেয়, তাই বাড়ির লোকের নজরেও সে বিশ্বাসযোগ্য।

আরো পড়ুন – কি খাবার খেলে মোটা হওয়া যায় সহজেই

রুম ডেটিং করতে আগ্রহী হয় – বারংবার দেখা করার ফাঁক খোঁজে। সেই দেখা হওয়া কিন্তু একান্তে। অন্য কাউকে ডাকে না তখন। অনেক সময় যৌন সম্পর্কের ভিডিও ধারণ করে গোপনে এবং পরবর্তীতে ব্লাকমেইল করে। মাঝরাতে মেসেজ করে। রাত ১টা, ২টার সময় মাখোমাখো মেসেজ পাঠাতে থাকে।

অযথা টাকা খরচ করায় – খারাপ মেয়ে কখনই অল্পতে সন্তুষ্ট থাকে না। তাই নিজের চাহিদা মেটানোর জন্য এরা যত সম্ভব মানুষের কাছে যায়। উদ্দেশ্য একটাই ওটা আমার চাই-ই চাই। এমন নারীর সঙ্গে কখনওই মদ্যপান করা উচিত নয়। হতেই পারে অচৈতন্য মুহূর্তের সুযোগ নিয়ে পরবর্তীকালে সমস্যায় ফেলে দিল।

সব সময় যৌনতাকে নিয়ে আসে আলোচনায় – এইসব মেয়ে নানা অছিলায় যৌনতাকে নিয়ে আসে আলোচনার মধ্যে। পুরুষকে যৌনভাবে উত্তেজিত করার চেষ্টা করে। সেই উত্তেজনার বশে পুরুষ যদি মাত্রাতিরিক্ত কিছু করেও ফেলে, বিপদ কিন্তু পুরুষেরই। এই সব খারাপ মেয়ে কিন্তু অবলীলায় দোষ চাপিয়ে দেয় পুরুষের ঘাড়ে।

73 total views, 1 views today

পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন